স্কুল শিক্ষার্থীকে মারধরের ভিডিও ভাইরাল

কুষ্টিয়ায় অভিভাবকদের সতর্ক করে গ্রেফতার ৪কিশোরের জামিন দিয়েছেন আদালত

এনামুল হক রাসেল এনামুল হক রাসেল

সম্পাদক, দ্য বিডি রিপোর্ট ২৪ ডটকম

প্রকাশিত: ১:৪৬ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২১, ২০২০
স্কুল শিক্ষার্থীকে মারধরের ভিডিও

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি : কুষ্টিয়ায় ৮ম শ্রেণির এক স্কুল শিক্ষার্থীকে অপর কয়েকজন কিশোর মিলে মারধরের ভিডিও ভাইরালের পর কুষ্টিয়া মডেল থানায় ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর পিতার করা মামলায় গ্রেফতার ৪কিশোরকে জামিন দিয়েছেন আদালত।

 

 

 

 

শনিবার দুপুরে কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক অরূপ কুমার গোস্বামী জামিন শুনানীকালে আদালতে উপস্থিত গ্রেফতার কিশোরদের পিতামাতা ও অভিভাবকদের শতর্ক হওয়ার শর্তে এই জামিনাদেশ দিয়েছেন বলে নিশ্চিত করেন কোর্ট জিআরও উপ-পুলিশ পরিদর্শক নকিব উদ্দিন।

 

 

 

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত বৃহষ্পতিবার দুপুরের পর থেকে মারধরের একটি ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম (ফেসবুক) এ ব্যাপক ভাইরাল হতে দেখা যায়। এঘটনায় শুক্রবার ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর পিাতা কুষ্টিয়া শহরের খোদাদাদ খান সড়ক থানাপাড়ার বাসিন্দা শামসুর রহমান তার ৮ম শ্রেনীতে পড়ুয়া ছেলেকে মারধর, হত্যার হুমকি ও হত্যা চেষ্টা অভিযোগ এনে কুষ্টিয়া মডেল থানায় মামলা করেন। দ:বি ১৪৩/৩৪২/৩২৩/৫০৬ ধারায় অপরাধে এজাহারভুক্ত তিন কিশোর হলেন- কুষ্টিয়া কলকাকলী, লরিয়েটস ইন্টা: ও দিনমনি হাই স্কুলের ৮ম শ্রেনীতে পড়ুয়া তিন শিক্ষার্থী।

 

 

 

এতে শহরের সচেতন মহল চরম উদ্বিগ্ন ও ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন। কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সরকারী কৌশুলী এ্যাড: অনুপ কুমার নন্দী প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে জানান, সব সময় সবক্ষেত্রে আইন দিয়ে সবকিছু হয়না। কোমলমতি এসব বাচ্চাদের যতদিন পর্যন্ত নিজের ভালো-মন্দের জীবনবোধ গড়ে না উঠবে ততদিন পর্যন্ত এদের সকল দায়-ই কার্যত: অভিভাবকদের উপর বর্তাবে বলে জানান। সন্তান জন্ম দেয়ার পর তাকে ভালো সন্তান হিসেবে গড়ে তোলার দায় নিতে হবে তাদের। নচেৎ এজাতীয় অপরাধের ক্রমবৃদ্ধি চরম উদ্বেগের কারন হয়ে উঠবে।

 

 

 

 

কুষ্টিয়ায় শিশু অপরাধ সংক্রান্ত বিষয়ে দায়িত্বরত প্রবেশন অফিসার আরিফুল ইসলাম জানান, বর্তমানে জেলায় সংঘটিত অন্তত: ৪০টি শিশু-কিশোর অপরাধের ঘটনায় জড়িত শিশু-কিশোরদের নিয়ে কাজ করছি। অপরাধ সংঘটনের পর শিশু সুরক্ষা আইনের বিধিমতে, অভিভাবকদের সাথে সমন্বিত উদ্যোগে প্রদত্ত নির্দেশিকার আলোকে তাদের আইনী সহায়তাসহ সব রকম নার্সিং করা হচ্ছে।

 

 

 

 

কুষ্টিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল কালাম জানান, গত বৃহষ্পতিবার শহরের হাউজিং এলাকার চাঁদাগাড়া মাঠে সংগঠিত কিশোর অপরাধের অভিযোগে করা মামলার এজাহারভুক্ত ৩কিশোরসহ ৪কিশোরকে শুক্রবার রাতে শহরের বিভিন্ন এলাকায় তাদের বাসা থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ। শনিবার সকালে গ্রেফতার কিশোরদের আদালতে সৌপর্দ করলে বিজ্ঞ জেলা ও দায়রা জজ তাদের জামিন দিয়েছেন। তবে এসময় অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে বিজ্ঞ আদালতের দেয়া সতর্কতার শর্ত উল্লেখ করে তিনি বলেন, পরিবারের পিতা মাতা বা অভিভাবকরা অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে যে, তাদের কিশোর বয়সী শিশুরা কোথায় যাচ্ছে, কার সাথে মিশছে এবং মোবাইলে কি করছে ?

 

পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।