মিরপুরের পোড়াদহে ছেলের হাতে মা খুন হত্যার ৩১ দিন পর পুকুর থেকে লাশ উদ্ধার

এনামুল হক রাসেল এনামুল হক রাসেল

সম্পাদক, দ্য বিডি রিপোর্ট ২৪ ডটকম

প্রকাশিত: ৯:৩৪ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২১

মিরপুর প্রতিনিধি: কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার পোড়াদহ ইউপি’র কাটদহতে (কাপড়ের হাটের পাশে) মা’কে খুন করে বাড়ির পাশের পুকুরে পুঁতে রেখেছিল ছেলে ও তার বন্ধু। ২৮ দিন আগে তারা এ হত্যাকান্ড সংঘটিত করে। এরপর পরপুরুষের হাত ধরে মা চলে গেছে বলে গুজব ছড়ায় ওই সন্তান ।

গতকাল গোয়েন্দা পুলিশের সদস্যরা ছেলের বন্ধুকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে খুনের দায় স্বীকার করে এবং তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে আজ লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায় পুলিশ।

লোম হর্ষক এ ঘটনাটি ঘটেছে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার পোড়াদহ ইউনিয়নের দক্ষিণ কাটদহ গ্রামে। গতকাল মঙ্গলবার ওই গ্রামের রাজার পুকুর থেকে মৃত ফজল বিশ্বাসের স্ত্রী মমতাজ বেগমের (৫৫) বস্তাবন্দি লাশ পুলিশ উদ্ধার করে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নিহত মমতাজ ২১ জানুয়ারী থেকে নিখোঁজ ছিলো। মায়ের নিখোঁজের ব্যাপারে ছেলে মুন্না বাবু ২৫ জানুয়ারি মিরপুর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করে। যার নং-৯৮৯। এ জিডি’র সূত্রধরে ঘটনার তদন্তে নামে ডিবি পুলিশ ।
ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে ছেলের বন্ধু একই গ্রামের ইয়াসীন আলীর ছেলে রাব্বী আলামীন (২৮) আটক করে পুলিশ।

তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ ওই নারীর লাশ উদ্ধার করে। ওই ঘটনায় হতভাগ্য ওই নারীর ভাই জেলারভেড়ামারা উপজেলার ক্ষেমিড় দিয়াড় গ্রামের মৃত তোফাজ্জেল হোসেনের ছেলে তুরাব আলী (৬৭) বাদী হয়ে ২৪ ফেব্রুয়ারী ওই নারীর ছেলে মুন্না বাবু, ছেলের বন্ধু রাব্বী আলামীন ও মৃত ইনসান বিশ্বাসের ছেলে দেবর আব্দুল কাদের বিশ্বাস (৫০) নামে মিরপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। মামলা নং ২১।

পুলিশ ময়না তদন্তের জন্য গতকালই লাশ কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেছে।

পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।