গাংনীতে অবৈধ ইটভাটার ফলে পাকা রাস্তা কাঁচা রাস্তায় পরিণত, বৃষ্টি হলেই ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা

এনামুল হক রাসেল এনামুল হক রাসেল

সম্পাদক, দ্য বিডি রিপোর্ট ২৪ ডটকম

প্রকাশিত: ১০:০৩ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ১৬, ২০২১

মেহেরপুর প্রতিনিধি: পরিবেশ অধিদপ্তর এর কর্মকর্তার দায়িত্ব অবহেলার কারণে গাংনীতে গড়ে উঠেছে অবৈধ ইটভাটা ফলে মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের মধ্যের সড়কে প্রতিদিন শতশত মাটি বহনকারী গাড়ী চলাচল করে। মাটি ব্যবসায়ীরা মাঠের মাটি বহন করার সময় রাস্তার উপরে মাটি পড়ে পিচ রাস্তা কাঁচা রাস্তায় পরিণত হয়েছে। ফলে মানুষের ভোগান্তি চরমে পৌঁছেছে। রাস্তার উপর মাটি পড়ে বৃষ্টির পানিতে সেগুলো ভয়ঙ্কর রূপ ধারণ করে। বৃষ্টি হলেই এই সড়কটি মরণ ফাঁদে পরিণত হয়।

 

 

সড়ক দুর্ঘটনা এড়াতে ও জনগণের চলাচলের সুবিধার্থে গাংনী উপজেলা প্রশাসন কে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

 

 

সাধারণ মানুষ যাতায়াতেও সাবধানতা অবলম্বন করে চলাচল করতে হয় পথচারী সহ গাড়ি চালকদের। সুন্দর একটি রাস্তা দেখে বোঝার উপায় নেই রাস্তাটি পাকা। একটু বৃষ্টি হলে একাকার। অহরহ ঘটছে দুর্ঘটনা। ট্রাক্টর দিয়ে মাটি টানার ফলে পিচের রাস্তাটি পরিণত হয় কাদায়।

 

 

মাটি ব্যবসায়ীরা ট্রাক্টরে করে মাটি নিয়ে পাকা রাস্তায় ওঠার সময় সাইট ভেঙ্গে যাচ্ছে। অথচ কেও প্রতিবাদ করছে না এলাকাবাসীর ভাষ্যমতে মাটি টানার ফলে সামান্য বৃষ্টি হলেই রাস্তায় চলাচল করা ঝুকিপুর্ন হয়ে উঠেছে।

 

এদুর্ঘটনায় মানুষ পঙ্গুত্ব বরণ করলেও কারো কোন মাথা ব্যাথা নেই।

 

 

সরেজমিন- এ দেখা যায়, গাংনী উপজেলার হিজলবাড়িয়া সড়কটির দশা অত্যন্ত নাজুক। গাংনী হয়ে ধানখোলা সড়কের থানা মোড় সংলগ্ন -সড়কের দুপােশ অবৈধ ইটভাটা থাকার কারণে পিচ রাস্তা কাঁচা রাস্তায় পরিণত হয়েছে।
উপজেলার বানিয়াপুকুর জোড়পুকুর ষোলটাকা, সিন্দুর কৌটা, গ্রামের মধ্য দিয়ে যে সড়কগুলো রয়েছে সকল রাস্তার উপরেই মাটিতে পড়ে আছে।

 

 

এছাড়াও কুষ্টিয়া মেহেরপুর সড়কের অলিনগর থেকে বামন্দী পর্যন্ত ও শুকর কান্দি থেকে খলিসাকুন্ডি পর্যন্ত অধিকাংশ জায়গায় পাকা রাস্তার উপর লেগে থাকা মাটি ও পাথর এর ছোট ছোট কুচি পড়ে আছে। বর্তমানে মাঠের রাস্তায় রূপান্তরিত হয়েছে।

 

 

হিজলবাড়িয়া হয়ে তেঁতুলবাড়িয়া সড়কের পাশের আবাদি জমি থেকে মাটি ব্যবসায়ীরা ট্রক্টর দিয়ে মাটি নেওয়ার ফলে অল্প বৃষ্টি হলেই রাস্তার উপর পড়ে থাকা মাটি পিচ্ছিল কাঁদায় পরিণত হয়।একসময় সড়কটি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে।বিশেষ করে, গাংনী উপজেলার জুগিন্দা সড়কের উপর মাটির পড়ে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।

 

 

কিন্তু গাংনী উপজেলা প্রশাসনের দৃষ্টিগোচর না হওয়ায় গুরুত্বপূর্ণ এই সড়কটির আজ বেহাল দশা। বৃষ্টি হলেই এই সড়কটি মরণ ফাঁদে পরিণত হয়।

 

 

উপজেলা প্রশাসন ইটভাটার মালিকদের বিরুদ্ধে নামমাত্র মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করছেন। কিন্তু আজ পর্যন্ত কোন ইটভাটা বন্ধ করেননি।

 

 

সাধারণ মানুষকে বাধ্য হয়ে চলাচল করতে হয়। এতে মানুষের দুর্ভোগের সঙ্গে যানবাহনের ও ক্ষয় ক্ষতি হচ্ছে। মটরসাইকেল আরোহীরাও চলাচল করতে পারছেন না। সড়কের এমন বেহাল দশার কারণে প্রায়ই ছোট বড় দুর্ঘটনা ঘটে। কিন্তু কেউ দেখার নেই।

 

 

এলাকাবাসী উপজেলা প্রশাসন ও জেলা প্রশাসকের দৃষ্টি আকর্ষণ করে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে অবৈধ ভাটা বন্ধসহ দোষী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানিয়েছেন।

 

 

এ ব্যাপারে গাংনী ভাটা মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান আতু বলেন, প্রতিটা মালিককে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে তারা যেন রাস্তার উপরে মাটি না পেলে তারা আমাদের কথা না শুনলে তাদের বিরুদ্ধে আমরা আইনগত ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হব।

 

 

এ ব্যাপারে গাংনী উপজেলা নির্বাহি অফিসার আর এম সেলিম শাহনেওয়াজ বলেন, উপজেলার বিভিন্ন ইটভাটায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়েছে। বর্তমানে মোবাইল কোর্ট অব্যাহত রয়েছে। তদন্ত করে ইটভাটা মালিকদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।