কুষ্টিয়ায় স্থানীয় রাজনৈতিক ও কলেজ কমিটি কেন্দ্রিক দ্বন্দের জেরে ভাস্কর্য ভাংচুর, গ্রেফতার-৩

এনামুল হক রাসেল এনামুল হক রাসেল

সম্পাদক, দ্য বিডি রিপোর্ট ২৪ ডটকম

প্রকাশিত: ১২:০১ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৯, ২০২০

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি : কুষ্টিয়া কুমারখালী উপজেলার কয়া গ্রামে ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনের বিপ্লবী নেতা যতীন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায় (বাঘা যতীন)র আবক্ষ ভাস্কর্য ভাংচুর ঘটনায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা কুমারখালী থানায় করা মামলায় ৩জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল জিজ্ঞাসাবাদের আটককৃত যুবলীগ নেতা আনিসুর এবং নৈশ প্রহরী খলিলুর রহমানের দেয়া তথ্যের সূত্রে ৩জনকে গ্রেফতার দেখিয়েছেন পুলিশ।

 

 

 

 

গ্রেফতার হলেন- কয়া ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি কয়া ফুলতল্ াগ্রামের বাসিন্দা মহিরুদ্দিন সেখের ছেলে আনিসুর রহমান আনিছ(৩৫), নাসির উদ্দিনের ছেলে সবুজ হোসেন(২০) এবং বুদ্দিন মন্ডলের ছেলে হৃদয় হোসেন(২০)।

 

 

 

 

গ্রেফতার বিষয়ে শনিবার দুপুর ১২টায় পুলিশ লইন্সের সভাকক্ষে কুষ্টিয়া পুলিশ সুপার এসএম তানভির আরাফাত আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে জানান, “প্রাথমিক ভাবে যেটা উঠে এসেছে তা হলো তাদের ইন্টারন্যাল কলেজ কমিটির সভাপতির সাথে কমিটি কেন্দ্রিক রাজনৈতিক দ্বন্দের কারণে এই ঘটনাটা ঘটিয়েছে তারা”। গত ১৭ তারিখ রাতে কুমারখালীর কয়া ইউনিয়নে কয়া কলেজ চত্বরে বাঘা যতীনের আবক্ষ ভাস্কর্যটি ভাঙ্গা হয়। সে পরিপ্রেক্ষিতে আমরা জেলা পুলিশ তদন্তে নামি। এখন পর্যন্ত এঘটনার সাথে সরাসরি জড়িত ৩জনকে চিহ্নিত করে তাদের গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছি। আর বাকীরা যারা আছে তাদের খুব দ্রæতই আমরা গ্রেফতার করে আওতায় আনতে সক্ষম হব। ইতোমধ্যে এই ভাস্কর্য ভাংচুরের চাক্ষুস প্রমান আমরা পেয়েছি। তারা ঘটনার পূর্বে সেখানে আড্ডার ছলে বেশ কিছুক্ষন অবস্থান করছিলো যা কলেজের দারোয়ান নিজে স্বচক্ষে দেখেছেন। রাত ১১টা থেকে তারা সেখানে অবস্থান করছিলো, রাত পৌনে ১টার দিকে তারা হাতুরী দিয়ে ৩টি স্থানে আঘাত করে এই ভাংচুরের ঘটনা ঘটিযেছে। এঘটনাটি কে পুলিশ একটা চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়ে তাৎক্ষনিক অল্প সময়ের মধ্যেই তাদের গ্রফতার করা হয়েছে। আমি আবারও বলছি, মুক্তিযুদ্ধের চেতনাসহ নামী দামি ব্যক্তিদের ভাস্কর্য যেখানে আছে সেখানে তার নিñিদ্র নিরাপত্তার স্বার্থে সেখানে সিসি ক্যামেরাসহ প্রহরী, আনসার প্রয়োজনে পুলিশ মোতায়েনের বাধ্যতামূলক সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে জেলার বিভিন্ন স্থানের ভাস্কর্যের তালিকা করা হয়েছে। কিন্তু বাঘা যতীনের এই ভাস্কর্যের তালিকা কলেজ কর্তৃপক্ষ আমাদের দেন নাই বলেই আমাদের নজরদারির বাইরে ছিলো।

 

 

 

 

এদিকে বাঘা যতীনের ভাস্কর্য ভাংচুর ঘটনার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ও মানব বন্ধন সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শানিবার বেলা ১১টায় কুষ্টিয়া শহরের থানামাড়স্থ বকচত্বরে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদ কুষ্টিয়া জেলার উদ্যোগের এই প্রতিবাদ মানব বন্ধনে সভাপতিত্ব করেন জেলা জাসদের সভাপতি হাজি গোলাম মহনিন। জাসদের এই কর্মসূচীতে অন্যান্য রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দও সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন। বক্তারা বলেন, “ইতিহাস ঐতিহ্য রক্ষায় ধর্মভিত্তিক রাজনীতি নিষিদ্ধসহ মৌলবাদি সাম্প্রদায়িক শক্তির আস্ফালন রুখে দাঁড়ানো এখন সময়ের দাবি। কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাংচুরের রেশ কাটতে না কাটতেই আবার বিপ্লবী নেতা বাঘা যতীনের আবক্ষ ভাস্কর্য ভাংচুরের ঘটনার মধ্যে দিয়ে রাষ্ট্র ক্ষমতার প্রভাব বলয়ে এবং প্রচ্ছন্ন চ্ছত্রছায়ায় ঘাপটি মেরে থাকা মহান মুক্তিযুদ্ধে পরাজিত অশুভ শক্তি আবারও প্রমান করল তাদের আস্ফালনের দৌরাত্ম।

পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।