এনেছিলে সাথে করে মৃত্যুহীন প্রাণ

এনামুল হক রাসেল এনামুল হক রাসেল

,সম্পাদক, দ্য বিডি রিপোর্ট

প্রকাশিত: ৯:০২ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৬, ২০২০
দৌলতপুর থানার ওসি এস এম আরিফুর রহমান

মো.শহিদুল্লাহ: এতদিন যিনি ছিলেন বৈশ্বিক মহামারী কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে কুষ্টিয়া জেলা পুলিশের সম্মুখ সারীর একজন গর্বিত যোদ্ধা, সেই তিনি অনুজীব করোণা সংক্রমণের শিকার হয়ে বুধবার রাত ১০:৩০ ঘটিকায় না ফেরার দেশের পথে পাড়ি জমালেন৷ খুলনা জেলার রুপসা থানা এস এম আরিফুর রহমান ২০০৫ সালে আউটসাইড ক্যাডেট হিসেবে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে ভর্তি হন৷ দীর্ঘ এক বছর পুলিশ একাডেমী সারদায় মৌলিক প্রশিক্ষণ গ্রহণ শেষে তিনি তার শিক্ষানবিশ জীবন শেষ করে এসআই হিসেবে কনফার্ম হয়ে সাব-ইন্সপেক্টর হিসেবে দায়িত্ব পালনের পর্যায়ে তিনি ২০১৩ সালে সাব-ইন্সপেক্টর হিসেবে কুষ্টিয়া জেলায় কর্মরত থাকেন৷

 

 

 

পরে অন্যত্র পদায়ন হন৷ পুলিশ পরিদর্শক হিসেবে পদোন্নতি লাভ করে তিনি সান্তাহার রেলওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ হিসেবে সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করেন৷ পরে তিনি কুষ্টিয়া জেলায় যোগদান করে দৌলতপুর থানার অফিসার ইনচার্জ এর দায়িত্ব গ্রহণ করেন৷ তিনি অফিসার ইনচার্জ হিসেবে সফলতার সাথে তার দায়িত্ব পালনের সাথে করোনার বিরুদ্ধে সম্মুখ যুদ্ধে অবতীর্ণ হন৷

 

 

 

অল্পদিনেই তিনি তার পুলিশিং পেশাদারিত্বের মাধ্যমে সবার মন কেড়ে নেন৷ তিনি ছিলেন সদাহাস্য মিষ্টভাষী ওসি৷ কিছুদিন আগে তিনি কোভিড-১৯ রোগেআক্রান্ত হয়ে ঢাকার রাজার বাগ কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালে ভর্তি হন৷ সেখানে লাইফ সাপোর্টে থাকার পর সবাইকে অশ্রু সাগরে ভাসিয়ে তিনি ২৬ আগস্ট বুধবার রাত ১০:৩০ টায় না ফেরার দেশের পথে পাড়ি জমান৷ (ইন্নালিল্লাহে ও ইন্না ইলাহি রাজিউন)মহান আল্লাহ পাক তাকে বেহেস্তবাসী করুন৷

 

 

 

তিনি মৃত্যুকালে তার স্ত্রী এবং দুই ছেলেকে রেখে গেছেন৷ তার মৃত্যুতে কুষ্টিয়া জেলা পুলিশ দারুন মর্মাহত৷ কুষ্টিয়া জেলা পুলিশের সুযোগ্য অভিভাবক পুলিশ সুপার জনাব এস এম তানভীর আরাফাত (পিপি- বার) তার প্রাণপ্রিয় সহকর্মীর মৃত্যুতে গভীর সমবেদনা ও শোক প্রকাশ করে এক শোক বার্তা প্রদান করেছেন৷ প্রদত্ত শোকবার্তায় তিনি তার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেছেন৷

 

 

আসুন আমাদের প্রাণপ্রিয় সহকর্মীর মৃত্যুতে সবাই একসাথে বলি “এনেছিলে সাথে করে মৃত্যুহীন প্রাণ, মরণে তাহাই তুমি করে গেলে দান৷”

লেখক: সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা, লেখক ও কলামিস্ট।

পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।