বিএনপির ৪২ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির ভার্চুয়াল সভা

আন্দোলনের মাধ্যমে গণতন্ত্রকে পুনরুদ্ধার করতে হবে, খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে- রুহুল কবির রিজভী

এনামুল হক রাসেল এনামুল হক রাসেল

,সম্পাদক, দ্য বিডি রিপোর্ট

প্রকাশিত: ৩:২৪ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৪, ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক : বিএনপির ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির ভার্চুয়াল সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার বিকাল ৩.০০ টায় ভার্চুয়াল সভা অনুষ্ঠিত হয়।

 

 

ভার্চুয়াল সভায় বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা, কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ মেহেদী আহমেদ রুমীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক বাচ্চুর পরিচালনায় ভার্চুয়াল সভায় বক্তব্য রাখেন, বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির স্থানীয় সরকার বিষয়ক সম্পাদক ও কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাবেক এমপি বীরমুক্তিযোদ্ধা অধ্যক্ষ সোহরাব উদ্দিন, বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য, কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য রেজা আহমেদ বাচ্চু মোল­াহ, বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ফরিদা ইয়াসমিন, ব্যারিষ্টার রাগিব রউফ চৌধুরী, কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাড.শামীম উল হাসান অপু, কুষ্টিয়া সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি বশিরুল আলম চাঁদ। খোকসা উপজেলা বিএনপির সভাপতি সৈয়দ আমজাদ আলী, মিরপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল হক, কুমারখালী পৌর বিএনপির সভাপতি কেএম আলম টমে, কুমারখালী থানা বিএনপির নেতা এ্যাড. শাতিল মাহমুদ। সভায় অংশ নেন জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক খন্দকার সামসুজ্জাহিদ, দৌলতপুর উপজেলা বিএনপির বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শহীদ সরকার মঙ্গল, কুষ্টিয়া শহর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক একে বিশ্বাস বাবু, কুমারখালী পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হাজী মনোয়ার হোসেন, কুমারখালী থানা বিএনপির সহ সভাপতি লুৎফর রহমান, যুগ্ম-সম্পাদক হাফিজুল ইসলাম হাফিজসহ থানা ও পৌর বিএনপির নেতৃবৃন্দ।

 

 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে রিজভী বলেন, দেশে গণতন্ত্র নেই। মানুষের মতপ্রকাশ করার অধিকার নেই। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে ও একটি অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচন দাবিতে বিএনপির চলমান আন্দোলন চলবে। ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে এটিই আমাদের প্রত্যয়। তিনি বলেন, গণতন্ত্রকে পুনরুদ্ধার করতে হবে, খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। পুরো জাতি আমাদের দিকে তাকিয়ে আছে, স্বপ্ন দেখছে। যথাযথ আন্দোলনের মধ্য দিয়েই আমরা সফল হবো। এজন্য বৃহত্তর ঐক্য গঠন করে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে এ আন্দোলন করতে হবে।

 

মেহেদী রুমী তার বক্তব্যে বলেন, আমরা গণতন্ত্রের জন্য লড়াই করে যাব। যতদিন বাংলাদেশে গণতন্ত্র, আইনের শাসন ও বিচার বিভাগের স্বাধীনতা ফিরে না আসবে, যতদিন গণতন্ত্রের নেত্রী খালেদা জিয়া মুক্ত না হবেন, ততদিন জাতীয়তাবাদী দল মানুষের সঙ্গে থাকবে এবং আন্দোলন করবে।

 

 

অধ্যক্ষ সোহরাব উদ্দিন বলেন, দেশে কোনো আইনের শাসন নেই। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির চরম অবনতি। দ্রব্যমূল্য লাগামহীন, খুন, গুম, ধর্ষণ বেড়েই চলেছে। তিনি বলেন, জাতির চরম দুঃসময়গুলোতে জিয়াউর রহমান দেশ ও জনগণের পক্ষে অবস্থান গ্রহণ করেছিলেন।

পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।